বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০, ০৮:৪৭ অপরাহ্ন

নোটিশ :
সারাদেশে সংবাদ কর্মী নিয়োগ চলছে যোগাযোগ  ইমেলঃ bdtimenews247@gmail.com
সংবাদ শিরোনাম :
‘মক্কা-মদিনা শাটডাউন করতে করোনা ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্রের সৃষ্টি’ র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‍্যাব ১১ নাঃগঞ্জ শহরে মহড়া। শ্রীনগর সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের উদ্যোগে জনসচেতনতা তৈরি ও ডেটোল সাবান বিতরণ। লক ডাউন বাংলাদেশে অসহায় বঞ্চিত হিজরা জনগোষ্ঠীর সাহায্যের আবেদন। আজকের পুলিশ আর ২০/৩০ বছর আগের পুলিশ কিন্তু এক না।শামীম ওসমান ভূমি দস্যু সায়েম,নুরু, সুইব, হারুন গংদের বিরুদ্বে আত্মসাৎ ও প্রতারনার অভিযোগ।   মোঃ সোহেল মাহাম্মুদ এর পক্ষ থেকে ২১ শে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে সকল শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলী। মোঃ সরদার সম্রাট শেখ এর পক্ষ থেকে  ২১ শে ফেব্রুয়ারি  উপলক্ষে সকল শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলী।  আলহাজ্ব তাসলিম হোসেন এর পক্ষ থেকে ২১ শে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে সকল শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলী। মোঃ তোফাজ্জল হোসেন  এর পক্ষ থেকে ২১ শে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে সকল শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলী।
সিরাজদিখানে কন্ট্রাকটর ও হেলপারের মারধরে যাত্রী হাসপাতালে।

সিরাজদিখানে কন্ট্রাকটর ও হেলপারের মারধরে যাত্রী হাসপাতালে।

 

মোঃ ফয়সাল হাওলাদার স্টাফ রিপোটারঃ

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে সীট নিয়ে তর্ক বিতর্কের এক পর্যায়ে বাস কন্ট্রাক্টর ও হেলপারের বেদরক মারধরে জ্ঞান হারা হয়ে আল আমিন (৩১) নামে এক যাত্রী হাসাপতালে ভর্তি হয়েছেন। গুলিস্তান-টংগীবাড়ী রুটের ডি.এম পরিবহন গাড়ী নং ১১-১৭৪৮ এর কন্ট্রাক্টর ও হেলপারে বিরুদ্ধে ওই যাত্রীকে মারধর করার অভিযোগ তোলেন আহতের স্ত্রী। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল সোয়া ৪ টার দিকে উপজেলার নিমতলা বাসস্ট্যান্ডে এ ঘটনা ঘটে। আহত যাত্রী উপজেলার ইছাপুরা ইউনিয়নের লালবাড়ী গ্রামের মালেক মাষ্টারের ছেলে। হাসাড়া হাইওয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। বর্তমানে বাসটি হাসাড়া হাইওয়ে থানা হেফাজতে রয়েছে। এ বিষয়ে ভূক্তভোগীরা থানায় লিখিত অভিযোগ করেন নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ডিএম পরিবহন ১১-১৭৪৮ নম্বরযুক্ত গাড়ীটি ঢাকা থেকে নিমতলা হয়ে টংগীবাড়ী যাচ্ছিল। গাড়ীটি নিমতলা বাসস্ট্যান্ডে এসে থামার পর একজন যাত্রী নেমে যায়। ওই ফাকা সীটে আল আমিনের বাচ্চাকে বসাতে গেলে কন্ট্রাকটরের সাথে তর্ক হয়। এর পর গাড়ীর কন্ট্রাক্টর ও হেলপার আমিনকে এলোপাথারী কিল, ঘুষি লাঠি মারতে মারতে গাড়ী থেকে নামায়। পরে আমরা গিয়ে ওই যাত্রী জ্ঞানহারা অবস্থায় নিতমলায় অবস্থিত বসুমতি হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করি।

আহত যাত্রীর স্ত্রী বলেন, আমরা ঢাকা থেকে সিরাজদিখান আসছিলাম। নিমতলায় আসার পর একজন যাত্রী নেমে যায়। ওই সীটে আমার স্বামী বাচ্চাকে বসাতে গেলে কন্ট্রাকটরের সাথে তর্ক হয়। এর পর কন্ট্রাক্টর ও হেলপার আমার স্বামীকে এলোপাথারী ভাবে মারধর করে। মারধরের একপর্যায়ে আমার স্বামী জ্ঞানহারা হয়ে যায়। পরে নিমতলা বাস স্ট্যান্টের লোকজন আমার স্বামীকে হাসপাতালে ভর্তি করে। আমি কন্ট্রাক্টর ও হেলপারের বিচার চাই।

হাসাড়া হাইওয়ে থানার ওসি আব্দুল বাছেদ জানান, ঘটনাটি আমার জানা নেই। মারামারির বিষয় আমরা দেখি না।

সিরাজদিখান থানার ডিউটি অফিসার এস,আই রিপন জানান, এ বিষয়ে কেউ আমাদের কাছে আসে নাই। আর এরকম কোন তথ্য আমাদের জানা নাই।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
সম্পাদক- মোহাম্মদ আলী। বার্তা সম্পাদক- মোঃ সানি হোসেন। নির্বাহী সম্পাদক- আনিছুর রহমান।
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web